হোম কর্পোরেট সাক্ষাৎকার চার্টার্ড সেক্রেটারি হিসাবে ক্যারিয়ার গড়তে আইসিএসবি’র বিকল্প নেই: জসিম উদ্দিন

চার্টার্ড সেক্রেটারি হিসাবে ক্যারিয়ার গড়তে আইসিএসবি’র বিকল্প নেই: জসিম উদ্দিন

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : at 8:50 pm
363
0
জসিম উদ্দিন

মাহমুদুন্নবী জ্যোতি: চাঁদপুর জেলার মতলব (উত্তর) থানার মো: আলী আজম ও জাহানারা আজম দম্পতির বড় সন্তান মো: জসিম উদ্দিন ১৯৮৫ সালের ২৮শে আগষ্ট জন্মগ্রহন করেন। বর্তমানে তিনি এবি ব্যাংক লিমিটেডে সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার হিসাবে কর্পোরেট অফিসে কোম্পানি সেক্রেটারিয়েল এন্ড বোর্ড এফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টে কর্মরত আছেন। তিনি ২০১৫ সালের ১৪ই আগষ্ট এস. এম. বোরহান উদ্দিন ও ফরিদা সরকারের বড় মেয়ে জান্নাতুল বাকিয়া নওশীনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ব হন।

শিক্ষা জীবনে তিনি ২০০১ সালে মতলবের মোজদ্দেদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ২০০৩ সালে ঢাকার দনিয়া কলেজ থেকে এইচএসসি, ২০০৮ সালে ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ এবং ২০১০ সালে একই প্রতিষ্ঠান থেকে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০১৭ সালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের আওতাধীন আইটিপি সনদ অর্জন করেন। সম্প্রতি ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি) থেকে চার্টার্ড সেক্রেটারি সার্টিফিকেট অর্জন করেন।

Spellbit Limited

কর্পোরেট সংবাদের ধারাবাহিক প্রতিবেদনে আমাদের আজকের অতিথি মো: জসিম উদ্দিন এসিএস।

কর্পোরেট সংবাদ: ক্যারিয়ার শুরুর কথা জানতে চাই।
মোঃ জসিম উদ্দিন: ২০০৮ সালে ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ ডিগ্রি অর্জনের পর উক্ত প্রতিষ্ঠানে একাউন্টিং বিষয়ের টিচিং এসিস্টেন্ট হিসাবে যোগদান করি। অত:পর ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারি লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ট্রেজারি ডিভিশনে এক্সিকিউটিভ হিসাবে যোগদান করি। পরবর্তীতে অক্টোবর ২, ২০১১ তারিখে এবি ব্যাংকে ম্যানেজমেন্ট ট্রেনিং হিসাবে কাজ শুরু করি। বর্তমানে সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিাসার হিসাবে এবি ব্যাংকের লিমিটেডের কর্পোরেট অফিসে কোম্পানি সেক্রেটারিয়েল এন্ড বোর্ড এ্যফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টে কর্মরত আছি।

কর্পোরেট সংবাদ: কী উদ্দেশ্যে চার্টার্ড প্রফেশনের সার্টিফিকেট অর্জন করলেন? আইসিএসবি থেকে প্রাপ্ত সনদ আপনার বর্তমান কর্মস্থলে কতটা ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আপনি মনে করেন?
জসিম উদ্দিন: বিশ্বায়নের এই যুগে কর্পোরেট ওয়ার্ল্ডে ভালোভাবে টিকে থাকতে হলে প্রতিনিয়ত নিজের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সচেষ্ট থাকতে হয়। আর এ জন্য পড়াশোনা আর কঠোর পরিশ্রমের কোন বিকল্প নেই। আমি চাকুরি জীবনের শুরু থেকেই কোম্পানির সুশাসন, কোম্পানি আইন, কোম্পানি গঠন প্রক্রিয়া এসব বিষয়ের প্রতি আগ্রহী ছিলাম। আর এই বিষয় নিয়ে কাজ করার আগ্রহ থেকেই আইসিএসবি থেকে চার্টার্ড সার্টিফিকেট অর্জন।
আইসিএসবি থেকে সনদ প্রাপ্তির পর আমি আমার পছন্দের বিষয় নিয়ে কাজ করার সুযোগ পাই এবং এবি ব্যাংকের গুলশান শাখার লোন বিভাগ থেকে কর্পোরেট অফিসের কোম্পানি সেক্রেটারিয়েল এন্ড বোর্ড এ্যফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টে স্নানান্তরিত হই।

কর্পোরেট সংবাদ: আইসিএসবিতে অধ্যায়নরত অবস্থায় কোন বিষয়টিকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছিলেন? কেন?
জসিম উদ্দিন: আইসিএসবিতে পড়ার সময় পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য নিয়মিত ক্লাসে উপস্থিতির উপর বেশি জোর দিয়েছি। নিজের উন্নতির জন্য সম্পৃক্ত সকল ধরনের আইন, আইনের কোন পরিবর্তন হলে সে বিষয়ে নিজেকে আপডেট রেখেছি এবং অন্যান্য দেশের চার্টার্ড সেক্রেটারি সিলেবাস সম্পৃক্ত বিষয়ে পড়াশোনা করেছি।

কর্পোরেট সংবাদ: কর্পোরেট সেক্টরে আইসিএসবি’র ভূমিকা আপনি কীভাবে মূল্যায়ন করেন?
জসিম উদ্দিন: কোয়ালিফাইড চার্টার্ড সেক্রেটারিরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় এবং বোর্ডকে সঠিক দিক নির্দেশনা প্রদানে মুখ্য ভুমিকা পালন করে থাকে। আইসিএসবি একক প্রতিষ্ঠান হিসাবে কর্পোরেট সেক্টরে মানসম্মত কোয়ালিফাইড চার্টার্ড সেক্রেটারি তৈরি করে আসছে।

কর্পোরেট সংবাদ: আইসিএসবি’র কোন দিকটাকে সবচেয়ে সফল বলে আপনি মনে করেন? দুর্বল কোনো দিক থাকলে সেটি কী?
জসিম উদ্দিন: আইসিএসবি সফল মানসম্মত কোয়ালিফাইড চার্টার্ড সেক্রেটারি তৈরিতে এবং তার উজ্জ্বল প্রমান হিসাবে কোয়ালিফাইড চার্টার্ড সেক্রেটারিরা কর্পোরেট সেক্টরে সফলতার সাথে গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

দুর্বল দিক বলব না। তবে বিভিন্ন শ্রেণির কর্মচারি ও কর্মকর্তাদের পাশাপাশি কোম্পানির পরিচালকদের জন্য আইসিএসবি বেশি বেশি ট্রেনিং কোর্সের আয়োজন করলে কোম্পানিগুলোতে সুশাসন প্রতিষ্ঠা আরো তরান্বিত করবে।

কর্পোরেট সংবাদ: এসিএস কোর্স করার সময় আইসিএসবি থেকে কী কোন প্রকার তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছেন? হয়ে থাকলে কী?
জসিম উদ্দিন: আইসিএসবিতে পড়ার সময়টুকু অনেক ভালো কেটেছে। বলার মত কোন খারাপ অভিজ্ঞতা নেই।

কর্পোরেট সংবাদ: আইসিএসবি’র সিলেবাস নিয়ে আপনি কী পুরোপুরি সন্তুষ্ট?
জসিম উদ্দিন: আইসিএসবি’র সিলেবাশ উন্নত দেশগুলোর সাথে মিল রেখে তৈরি করা এবং একজন কোম্পানি সচিব হিসাবে যে সব বিষয় জানা প্রয়োজন সে সব বিষয় সিলেবাসে অন্তর্ভূক্ত। সুতরাং বলা যায় আইসিএসবি’র সিলেবাস মানসম্মত।

কর্পোরেট সংবাদ: আপনার কাছে কী মনে হয়, আইসিএসবি’র সিলেবাস পরিবর্তন করা প্রয়োজন আছে?
জসিম উদ্দিন: পরিবর্তন বলব না, প্রতিনিয়ত সিলেবাস পর্যলোচনা ও অন্যান্য দেশের চার্টার্ড সেক্রেটারি সিলেবাস এর সাথে মিল রেখে এবং বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যদি কোন বিষয় অন্তর্ভূক্তির প্রয়োজন পরে তা অন্তর্ভূক্ত করা সময়ের দাবি।

কর্পোরেট সংবাদ: আগামী প্রজন্ম কেন আইসিএসবিতে পড়বে-এ বিষয়ে আপনার উপদেশ কী?
জসিম উদ্দিন: “সময় এখন নতুন প্রজন্মের”। সুতরাং, আগামী দিনের কর্পোরেট লিডার হিসাবে নিজেকে তৈরি করতে আইসিএসবি থেকে চার্টার্ড সেক্রেটারি ডিগ্রি অনেক বেশি এগিয়ে রাখবে।

কোম্পানী সচিব, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা, সাচিবিক নিরিক্ষা, আর্থিক ব্যবস্থাপনা, আইটি অডিট, সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং অন্যান্য প্রফেশনে যারা কাজ করতে আগ্রহী তাদের জন্য একটা প্রফেশনাল ডিগ্রী হিসাবে চার্টার্ড সেক্রেটারি ডিগ্রী অনেক বেশি সাহায্য করবে, নিজেকে তার কর্মক্ষেত্রে দক্ষ এবং মুল্যবান কর্মী হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবে।

কর্পোরেট সংবাদ: আপনার প্রিয় শখ বইপড়া ও ক্রিকেট খেলা। খেলোয়ার হিসেবে কোন অভিজ্ঞতা আছে কী? থাকলে বিস্তারিত জানাবেন। প্রিয় ক্রিকেটার ও প্রিয় দল।
জসিম উদ্দিন: অবসর সময় খুব কম পাওয়া যায়, যতটুকু পাই বই পড়ি, মাঝে মাঝে ক্রিকেট খেলায় সময় দেই। আমার প্রিয় ক্রিকেটার শচিন টেন্ডুলকার আর প্রিয় দল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

কর্পোরেট সংবাদ: ভবিষ্যত পরিকল্পনা।
জসিম উদ্দিন: বর্তমানে আমাদের দেশের আর্থিক সেক্টরে খুব খারাপ সময় দিয়ে যাচ্ছে। এই সেক্টরের উন্নতিকল্পে কোম্পানির সুশাসন, কর্পোরেট গভর্নেন্স প্রতিষ্ঠায় সততার সাথে কাজ করে যেতে চাই।

কর্পোরেট সংবাদ: কর্পোরেট সংবাদকে সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ।
জসিম উদ্দিন: কর্পোরেট সংবাদকেও আন্তরিক ধন্যবাদ, এমন সুন্দর একটি আয়োজনের জন্য।

আইসিএসবি’র ৭ম কনভোকেশনে সনদ গ্রহণ করছেন মো: জসিম উদ্দিন

আরো পড়তে পারেন: কর্পোরেট সেক্টরে আইসিএসবি’র ভূমিকা অনস্বীকার্য: মারুফ আল হাসনাত এসিএস