Home bd news আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ২৪ কোম্পানি

আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ২৪ কোম্পানি

arthik-potibadon-1
Senior Staff Reporter (SM)

Published: 11:06:12
27
0

image_pdfimage_print
শেয়ারবাজার ডেস্ক: পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত ২৪ কোম্পানি চলতি হিসাববছরের প্রথম (জানুয়ারি-মার্চ ১৮) প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সূত্র: ডিএসই।
আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে  (জানুয়ারি-মার্চ’১৮) কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.১৩ টাকা। এর আগের বছর একই সময় লোকসান ছিল ০.১২ টাকা। শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর অর্থ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ০.৩০ টাকা ঋণাত্মক। শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৮৫ টাকা ঋণাত্মক।
রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স: প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ’১৮) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫১ টাকা। এর আগের বছর একই সময় ইপিএস ছিল ০.৪৯ টাকা।
শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর অর্থ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ০.০৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৯১ টাকা। শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৪৩ টাকা। যা ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত ছিলো ১৪.৯২ টাকা।
সিটি ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ’১৮) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪০ টাকা ও এককভাবে ০.২২ টাকা। এর আগের বছর একই সময় সমন্বিত ইপিএস ছিল ০.৬৭ টাকা ও এককভাবে ০.৫৬ টাকা। শেয়ার প্রতি সমন্বিত নগদ কার্যকর অর্থ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ০.৩৪ টাকা ঋণাত্মক। শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৭ টাকা।
সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স: শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৮ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৬৭ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস এক পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ২৩ টাকা ৪৯ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ২২ টাকা ৮১ পয়সা।
মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স: প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ’১৮) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স। প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৬৯ টাকা। এর আগের বছর একই সময় ছিল ০.৬৭ টাকা।
সিঙ্গার বাংলাদেশ: ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৬৪ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৯৯ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ৬৫ পয়সা। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি ২৯ টাকা ৭৩ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ২৮ টাকা ১৭ পয়সা।
বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৫১ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৪৪ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে সাত পয়সা। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ৪৪ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ১৭ টাকা পাঁচ পয়সা।
যমুনা ব্যাংক: ইপিএস হয়েছে ৫২ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৩৯ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ১৩ পয়সা। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ২১ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ২৬ টাকা ৫৮ পয়সা।
পূবালী ব্যাংক: ইপিএস হয়েছে ২৭ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৩৮ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস ১১ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ৪৪ টাকা ৪০ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ৪৪ টাকা সাত পয়সা।
মাইডাস ফাইন্যান্স: ইপিএস হয়েছে ৪২ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৬৫ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস ২৩ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ৪০ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ১১ টাকা ৯৬ পয়সা।
এশিয়া ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৫৬ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৬১ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস পাঁচ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৯ টাকা ৯ পয়সা,যা আগের বছর ছিল ২০ টাকা ১৯ পয়সা।
প্রাইম ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৩৫ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৭৬ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস ৪১ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ১১ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ১৭ টাকা ২৬ পয়সা।
কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৩৯ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৩৮ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস এক পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ৪৭ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময় ছিল ১৯ টাকা ৮৮ পয়সা।
পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৩২ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৭৩ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস ৪১ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৩ টাকা ৭৬ পয়সা, যা আগেধর বছরের একই সময় ছিল ১২ টাকা ৫৭ পয়সা।
সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৩০ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৪৯ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে ইপিএস ১৯ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ছয় পয়সা, যা আগের বছরের একই সময় ছিল ১৬ টাকা ৯ পয়সা।
উত্তরা ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট: ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ২৮ পয়সা, যা আগের বছর ছিল দুই টাকা ২৪ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস চার পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ৫২ টাকা দুই পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ছিল ৪৯ টাকা ৭৪ পয়সা।
প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ১৭ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ১৮ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস এক পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৪৫ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময় ছিল ১৩ টাকা ২১ পয়সা।
জিএসপি ফাইন্যান্স: ইপিএস হয়েছে ৪৪ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৫২ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস আট পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ৮৭ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ২০ টাকা ৪৪ পয়সা।
ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৩১ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ১০ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস ২১ পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ৮০ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময় পর্যন্ত ছিল ২৪ টাকা ৫৭ পয়সা।
ওয়ান ব্যাংক: ইপিএস হয়েছে ৩৩ পয়সা, যা আগের বছর ছিল এক টাকা ২৩ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস ৯০ পয়সা কমেছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৯ টাকা ৭৯ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ছিল ১৯ টাকা ৪৮ পয়সা।
ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস: প্রথম প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৫০ পয়সা, যা আগের বছর শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ছয় পয়সা। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৮৭ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ছিল ১৪ টাকা ৩৬ পয়সা।

আইএফআইসি ব্যাংক: ইপিএস হয়েছে ৩০ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ২৬ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস চার পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৭৮ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময় ছিল ১১ টাকা ৯৭ পয়সা।

বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৯০ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৮৯ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস এক পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ৫০ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময় ছিল ২০ টাকা ৭৭ পয়সা।

ঢাকা ইন্স্যুরেন্স: ইপিএস হয়েছে ৪০ পয়সা, যা আগের বছর ছিল ৩৬ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস চার পয়সা বেড়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২৩ টাকা ৬৯ পয়সা, যা আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ছিল ২৩ টাকা ৫৬ পয়সা।

Print Friendly, PDF & Email