Home bd news যে সব কারণে বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদ

যে সব কারণে বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদ

বিবাহ বিচ্ছেদ
Senior Staff Reporter (SM)

Published: 18:35:30
76
0

image_pdfimage_print

প্রেম করেই হোক বা পারিবারিক ভাবে বিয়ের পরে নানা কারণেই অনেক দম্পতির মধ্যে দেখা দেয় নানাবিধ সমস্যা। এর প্রেক্ষিতে বিয়ের পরে ডিভোর্স হয়ে যায়। আর এই প্রবণতা দিনে দিনে বাড়ছে। এই বিবাহ বিচ্ছেদের কিছু কারণ নিচে তুলে ধরা হল:

ক্যারিয়ার নিয়ে সমস্যা : বিয়ের পর ক্যারিয়ার আর পারিবারিক দায়িত্বের মধ্যে অনেক ক্ষেত্রেই দ্বন্দ্ব বেঁধে যায়। বিয়ের পর স্বামী আশা করেন, স্ত্রী চাকরি ছেড়ে পরিবারকে সময় দেবেন। স্ত্রী-ও আশা করেন স্বামীর কাছে তার অফিসের থেকে বেশি প্রাধান্য পাবেন তিনি নিজে। সেই আশা পূরণ না হলেই দেখা দেয় সমস্যা।

শারীরিক দুর্বলতা : বিয়ের পরে সঙ্গীর শারীরিক দুর্বলতা প্রকাশ পেলে সেখান থেকেই সমস্যা দেখা দেয়। অ্যারেঞ্জ ম্যারেজের ক্ষেত্রে অন্য একটা সমস্যাও থাকে। একেবারে অপরিচিত একজন মানুষের সঙ্গে কিছু প্রাথমিক অস্বস্তি থাকা একেবারে স্বাভাবিক। কিন্তু এই বিষয়টিই অনেক সময়ে দম্পতিদের মধ্যে ব্যবধান তৈরি করে দেয়।

ধৈর্যের অভাব : বহু ক্ষেত্রেই দেখা যায়, বিয়ের পর স্বামীর অথবা স্ত্রীর কোনো একটি বিশেষ অভ্যাস বা জীবনযাপনের কোনো একটি দিক অন্যজনের বিরক্তির কারণ হচ্ছে। স্বামী হয়তো অফিস বেরনোর আগে ভিজা তোয়ালেটা রেখে যাচ্ছেন বিছানার উপর, সেটা স্ত্রীর পছন্দ নয়। আবার স্ত্রী হয়তো প্রতিদিন বাথরুমে সুইচটা অফ করতে ভুলে যাচ্ছেন, সেটা পছন্দ নয় স্বামীর। সেই নিয়েই বেঁধে যাচ্ছে ঝগড়া।
 
পরিবারের সদস্যদের অনধিকার চর্চা : স্বামী এবং স্ত্রী দু’জনেরই পরিবারের সদস্যদের নাক গলানো যে কোনো নবদম্পতির কাছে একটা বড় সমস্যা। বাড়ির বড়রা যদি কথায় কথায় পরামর্শ, উপদেশ বা আদেশ দিয়ে নব বিবাহিত স্বামী-স্ত্রীকে নিজেদের ইচ্ছেমতো চালনা করতে চান তাহলে খুব মুশকিল। তাদের এই অবাঞ্ছিত নাক গলানো স্বভাবের ফলে সমস্যা তৈরি হয় স্বামী স্ত্রীর মধ্যেও।
 
প্রত্যাশা পূরণের অভাব : প্রত্যেকটি ছেলে বা মেয়ের মনেই আদর্শ স্ত্রী বা স্বামী সম্পর্কে একটা ধারণা তৈরি থাকে বিয়ের আগে থেকেই। বিয়ের পর সেই ধারণার সঙ্গে বাস্তবের স্ত্রী বা স্বামীটির মিল পাওয়া যায় না অধিকাংশ ক্ষেত্রেই। সেখান থেকেই তৈরি হয় প্রত্যাশা অপূর্ণ থাকার একটি হতাশা।
 
ভালো দাম্পত্য জীবন পেতে তাই আগে থেকেই এই সমস্যাগুলো যাতে জীবনে হামলা করতে না পারে, তেমনভাবে নিজেকে তৈরি রাখুন। 
Print Friendly, PDF & Email

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.