Home bd news ফোরজি সেবা নিতে হলে তিনটি বিষয়ের প্রয়োজন

ফোরজি সেবা নিতে হলে তিনটি বিষয়ের প্রয়োজন

ফোরজি
Staff Reporter (U)

Published: 16:14:30
370
0

image_pdfimage_print
করর্পোরেট সংবাদ ডেস্ক: চতুর্থ প্রজন্মের ফোরজি টেলিযোগাযোগ সেবা আজ সোমবার থেকে চালু হতে যাচ্ছে। এই সেবা নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই সাধারণ মানুষের মধ্যে। তবে প্রাথমিকভাবে এই সেবা আইফোনের বেশিরভাগ হ্যান্ডসেটেই পাওয়া যাবে না বলে জানিয়েছে বিটিআরসি। আর এই সেবা নিতে দরকার হবে তিনটি বিষয়ের। চলুন জেনে যাক এ সেবার বিস্তারিত।
রবি’র রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স বিভাগের প্রধান শাহেদ আলম ফোরজি সেবা নিয়ে বলেন, এ সেবা নিতে হলে মূলত তিনটি বিষয়ের প্রয়োজন হবে। প্রথমত, আপনাকে ফোরজি সিম নিতে হবে, হ্যান্ডসেটটিতে ফোরজি সাপোর্ট করতে হবে এবং ফোরজি নেটওয়ার্কের মধ্যে অবস্থান করতে হবে। তবে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো কিছুদিন আগে থেকেই ফোরজি সিম কার্ড বাজারে ছাড়তে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন:কঠোর আইনের মুখে ফেসবুক-গুগল

অন্যদিকে ফোরজি সাপোর্ট করবে এমন হ্যান্ডসেটও রয়েছে অনেকের হাতে। তবে এই হ্যান্ডসেটের সংখ্যা মাত্র ৮ শতাংশ বলে দাবি করেন শাহেদ। আপনার ফোন এবং সিমকার্ডটি ফোরটি সাপোর্ট করবে কিনা, একটি এসএমএসের মাধ্যমেই তা জেনে নিতে পারবেন।

এজন্য গ্রামীণফোন গ্রাহকরা *১২১*৩২৩২# লিখে ডায়াল করলে ফিরতি এসএমএসেই আপনার সিম ও হ্যান্ডসেটটি ফোরজি কিনা সেই তথ্য জানতে পারবেন। এজন্য রবি ও এয়ারটেল ব্যবহারকারীদের ডায়াল করতে হবে *১২৩*৪৪# লিখে।

বাংলালিংক গ্রাহকরা মেসেজ অপশনে গিয়ে ফোরজি লিখে ৫০০০ নম্বরে এসএমএস পাঠালে ফিরতি মেসেজে জানতে পারবেন সিমটি ফোরজি কিনা। টেলিটক এ বিষয়ে এখনও বিস্তারিত কিছুই জানায়নি।

অন্যদিকে হ্যান্ডসেটটি ফোরজি উপযোগী কি না, সেটি আপনি নিজেই জানতে পারবেন। এ জন্য প্রথমে হ্যান্ডসেটের ‘সেটিংস’ অপশনে গিয়ে নেটওয়ার্ক অথবা ‘ওয়্যারলেস অ্যান্ড নেটওয়ার্কস’-এ গেলে দেখা যাবে ফোনটি ফোরজি প্রযুক্তির কি না।

ফোরজি’তে বাড়তি কী থাকছে-

চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক বা ফোরজি নেটওয়ার্কে সেকেন্ডে ২ মেগাবাইট থেকে ৪০ মেগাবাইট পর্যন্ত গতিতে তথ্য আদান-প্রদান করা যাবে। ফোরজি হলো ইন্টারনেট গতির ক্ষেত্রে বড় একটি পর্যায়। তবে ফোরজি সেবাকে শুধুমাত্র গতিবৃদ্ধির সেবা হিসেবে বর্ণনা করতে নারাজ রবির রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্সের প্রধান।

আরও পড়ুন:ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে কি-বোর্ডের ‘কি’ কেন এলোমেলো?

তিনি বলেন, ফোরজি সেবা চালু হলে ইন্টারনেটের গতি অনেক বৃদ্ধি পাবে এবং এরফলে মাল্টি স্ক্রিন ভিডিও কনফারেন্স করা সম্ভব হবে। এছাড়া ই-এডুকেশন ও ই-মেডিকেল সুবিধা পূর্ণাঙ্গরূপে দেয়া যাবে। এরসঙ্গে সংশ্লিষ্ট আইওটি সার্ভিসগুলোও ভালোভাবে দেয়া যাবে। এক কথায় এই গতিবৃদ্ধির ফলে দেশের প্রযুক্তি খাতে একটি নতুন দিগন্তের সূচনা হবে।

আইফোনে কাজ করবে না ফোরজি

বাংলাদেশ আমদানিকৃত বেশিরভাগ আইফোনেই ফোরজি কাজ করবে না বলে জানিয়েছে বিটিআরসি। এর কারণ সম্পর্কে বলতে গিয়ে সরওয়ার আলম বলেন, বাংলাদেশে যেহেতু এতদিন আইফোন ছিল না তাই দেশে আমদানিকৃত আইফোনগুলোতে ফোরজি ডিসঅ্যাবল্ড করা ছিল। এখন যেহেতু আমরা ফোরজি চালু করছি তাই অল্প সময়ের মধ্যেই এ সুবিধা পাবেন দেশের ১৫ লাখ আইফোন ব্যবহারকারী।

Print Friendly, PDF & Email

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.