Home bd news প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের জন্য আরব দেশগুলোকে ব্যয় কমানোর আহ্বান আইএমএফের

প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের জন্য আরব দেশগুলোকে ব্যয় কমানোর আহ্বান আইএমএফের

imf
Staff Reporter (U)

Published: 12:40:20
64
0

image_pdfimage_print

ডেস্ক রিপোর্টঃ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রধান ক্রিস্টিন লাগার্দে মনে করেন, টেকসই প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের জন্য আরব দেশগুলোকে খরচে লাগাম টানতে হবে। এজন্য তিনি দেশগুলোর সরকারি খাতে বেতন-ভাতা ও ভর্তুকি কমানোর পরামর্শ দিয়েছেন। দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত আরব ফিসক্যাল ফোরামে বক্তৃতায় বেশকিছু আরব দেশের নেয়া ‘প্রতিশ্রুতিশীল’ সংস্কার কার্যক্রমকে স্বাগত জানিয়েছেন আইএমএফের প্রধান লাগার্দে। তবে এখনো যেসব অর্থনৈতিক ও সামাজিক সমস্যা রয়েছে, তা থেকে উত্তরণে এসব দেশকে আরো কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

লাগার্দে আরো বলেন, তেলের নিম্নমুখী দামের কারণে আরবের তেল রফতানিকারক দেশগুলো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অন্যদিকে বর্ধনশীল ঋণ, বেকারত্ব, দ্বন্দ্ব, সন্ত্রাসবাদ ও শরণার্থী সমাগমের কারণে তেলের আমদানিকারক দেশগুলোও ভালো অবস্থায় নেই।

আরব মনিটারি ফান্ডের (এএমএফ) তথ্য অনুসারে, কয়েক বছর ধরেই সব আরব দেশই বাজেট ঘাটতিতে রয়েছে। গত বছর আরব দেশগুলো সামগ্রিকভাবে মাত্র ১ দশমিক ৯ শতাংশ সম্প্রসারিত হয়েছে; যা বৈশ্বিক হারের অর্ধেক মাত্র।

লাগার্দে জানিয়েছেন, অর্থনীতিতে অনুকূল পরিস্থিতি না থাকা সত্ত্বেও আরব দেশের সরকারি ব্যয় এখনো অনেক বেশি। বিশেষ করে তেলসম্পদে ধনী দেশগুলোয় এ প্রবণতা বেশি চোখে পড়ে। এসব দেশে সরকারি ব্যয় জিডিপির ৫৫ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। অনেক আরব দেশ খরচ কমাতে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করলেও তা খুবই সাময়িক সময়ের জন্য বলে উল্লেখ করেন লাগার্দে।

সরকারি ব্যয় কমানোর ক্ষেত্রে ব্যয়বহুল ভর্তুকি কমানো ও সরকারি বেতন-ভাতা হ্রাসের ওপর সবচেয়ে গুরুত্ব দিতে হবে বলে মনে করেন আইএমএফের প্রধান। পাশাপাশি স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও সরকারি বিনিয়োগের মতো খাতে দক্ষতা আরো বাড়াতে হবে। লাগার্দে বলেন, জ্বালানিতে ভর্তুকি অব্যাহত রাখার ক্ষেত্রে সত্যিকার অর্থেই কোনো অজুহাত নেই। এ ভর্তুকি অনেক ব্যয়বহুল। তেল রফতানিকারক দেশগুলোয় গড়ে জিডিপির সাড়ে ৪ শতাংশ এবং আমদানিকারক দেশগুলোয় এ ব্যয় ভর্তুকি ব্যয় জিডিপির ৩ শতাংশ।

এদিকে গালফ কো-অপারেশন কাউন্সিলসহ (জিসিসি) অন্যান্য আরব দেশ বিগত বছরগুলোয় জ্বালানিতে ভর্তুকি কমালেও তা তুলনামূলক বিচারে এখনো অনেক বেশি। এএমএফের চেয়ারম্যান আব্দুল রহমান আল-হামিদি বলেন, গত বছর আরব দেশে জ্বালানিতে ভর্তুকি ১১ হাজার ৭০০ কোটি ডলার থেকে কমে ৯ হাজার ৮০০ কোটি ডলারে নেমে এসেছে।

আইএমএফ প্রধান সতর্ক করে বলেছেন, আরব তরুণদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য উচ্চপ্রবৃদ্ধি ও কঠোরতর সংস্কার কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘বিশ্বের মধ্যে আরববিশ্বেই তরুণ বেকারত্বের হার সবচেয়ে বেশি। এ অঞ্চলে গড়ে ২৫ শতাংশ বেকার রয়েছে। এর মধ্যে নয়টি দেশে তা ৩০ শতাংশের বেশি। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ২ কোটি ৭০ লাখের বেশি তরুণ শ্রমবাজারে প্রবেশ করবে।’

এএমএফের চেয়ারম্যান হামিদি এ প্রসঙ্গে জানান, প্রয়োজনীয় কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হলে আরব অর্থনীতিগুলোকে বার্ষিক হিসাবে কমপক্ষে ৫-৬ শতাংশ হারে সম্প্রসারিত হতে হবে। তিনি আরো জানান, আরববিশ্বের ৪০ কোটি জনসংখ্যার অর্ধেকের বয়স ২৫ বছরের নিচে।

Print Friendly, PDF & Email

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.