Home আইন-আদালত আবদুল ওয়াহহাব মিঞার সঙ্গে আইনমন্ত্রীর বৈঠক

আবদুল ওয়াহহাব মিঞার সঙ্গে আইনমন্ত্রীর বৈঠক

SHARE
NGIC-Logo
Beximco-Pharma
Ibn-Sina-Logo
montiri
Staff Reporter

Published: অক্টোবর ১২, ২০১৭ ১৩:১৭:২৪
175
0

ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞার কিছু প্রশাসনিক পরিবর্তনের (অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ চেঞ্জ) প্রস্তাব নিয়ে তার সঙ্গে বৈঠক করেছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। সুপ্রিমকোর্টে এসে গতকাল বিকাল ৩টা থেকে প্রায় ৪০ মিনিট ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির সঙ্গে তার খাস কামরায় মন্ত্রী বৈঠক করেন।

বৈঠক শেষে আনিসুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির সঙ্গে দেখা করে এলাম। কিছু প্রোগ্রাম ছিল, ধরেন ২ ডিসেম্বর জুডিশিয়াল কনফারেন্স হওয়ার কথা রয়েছে। সেগুলোর আলোকে ওনার মতামত নিতে এসেছিলাম। আর অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ চেঞ্জ উনি করবেন। সেগুলোও উনি আমাকে অবহিত করেছেন। এই দুটি বিষয়েই আলোচনা হয়েছে।

‘বিচারিক আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি নিয়ে বসার কথা বলেছেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। এ বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ওটা নিয়েও আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়েও আমরা বসব। আলোচনার প্রক্রিয়াটা কী হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এন্টায়ার অ্যাপিলেট ডিভিশনের যে বিচারপতিরা আছেন, আমরা সবাই মিলে এটার একটা সুরাহা করব। আর ইনশা আল্লাহ আমার মনে হয়, যেভাবে আলাপ হয়েছে, আগামী তারিখের বৈঠকের আগেই এ সম্পর্কে একটি সিদ্ধান্তে আসতে পারব।

রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা নিয়ে যে আলোচনা চলছিল, সেটি আলোচনায় আসবে কিনা প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, উই উইল শিওরলি ডিসকাস দ্যাট। এটা নিশ্চয়ই আলোচনা হবে এবং আমরা একটা সিদ্ধান্তে নিশ্চয়ই আসব। উচ্চ আদালতে বিচারক সংকট এবং নিয়োগ বিষয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, দুটি কথা আপনাদের বলি। প্রথম কথা হচ্ছে হাইকোর্ট ডিভিশনের বেশ কয়েক বিচারপতি রিটায়ারমেন্টে গেছেন। সেখানে বিচারপতি নিয়োগের চিন্তাভাবনা তো আমরা করবই। আর আপিল বিভাগ সম্পর্কে আপনারা যেটি বলছেন, দেখেন আপনাদের বলি আপিল বিভাগ কিন্তু তিনজনকে দিয়েও হয়েছে। তারপরও আপিল বিভাগ সম্পর্কে আমরা চিন্তাভাবনা করব।

প্রধান বিচারপতির বিষয়ে সরকারি আদেশ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, আপনারা সবাই জানেন ২০০৭ সালের ১ নভেম্বর যখন বিচার বিভাগ আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীন হয়, তখন থেকে প্রধান বিচারপতির ছুটি তিনি নিজেই নেন। এখন প্রধান বিচারপতি ছুটি নেওয়ার পর এখানে তো শূন্যতা থাকতে পারে না। তাই একজনকে অস্থায়ী বিচারপতি হতে হয়। অস্থায়ী বিচারপতি সংবিধানের ৯৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নিয়োগ দেন রাষ্ট্রপতি। প্রধান বিচারপতি সে বিষয়টি রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন। 

BD-Lamp-Logo
Phonix-logo-270