Home শিল্প-বাণিজ্য বিশ্বের বড় বড় সুপারশপ নিচ্ছে প্রাণ পণ্য

    বিশ্বের বড় বড় সুপারশপ নিচ্ছে প্রাণ পণ্য

    SHARE
    NGIC-Logo
    Beximco-Pharma
    Ibn-Sina-Logo
    pran
    Staff reporter (s)

    Published: অক্টোবর ১০, ২০১৭ ১৮:১৮:৫৪
    146
    0

    আবাসিক হোটেল থেকে শুরু করে গণপরিবহন সব জায়গায় মানুষের ঢল। উপলক্ষ বিশ্বের সবচেয়ে বড় খাদ্যপণ্যের মেলায় অংশ নেওয়া। ‘আনুগা’ প্রদর্শনীতে নিজেদের পণ্য তুলে ধরতে ১০৭টি দেশ থেকে সাত হাজার ৪০০ বৈশ্বিক বড় বড় খাদ্যপণ্য উৎপাদক ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানের কর্তাব্যক্তিরা এখানে হাজির হয়েছেন। খাদ্য ও পানীয় খাতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই প্রদর্শনীতে শুধু ভারত থেকেই এসেছে ১১১টি কম্পানির কয়েক হাজার প্রদর্শক। এই প্রদর্শনীতে বেশ সরব উপস্থিতি রয়েছে বাংলাদেশের অন্যতম খাদ্যপণ্য প্রক্রিয়াজাতকারী ও রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান প্রাণ গ্রুপ। বিশ্বের নামিদামি সুপারশপের কর্ণধাররা আনুগা প্রদর্শনীতে প্রাণের দুটি স্টলে বেশ কিছু পণ্যের বিক্রয় আদেশ দিয়েছেন বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির রপ্তানি কার্যক্রমে জড়িত কর্মকর্তারা।

    আনুগা প্রদর্শনীতে প্রাণ এক্সপোর্ট লিমিটেডের বাংলাদেশ কার্যালয়ের পাশাপাশি এবং ইউরোপ, আফ্রিকা, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন অঞ্চলের কান্ট্রি ম্যানেজারদের কয়েকজন এসেছেন এই মেলায়। দ্বিতীয় দিনে গত রবিবার প্রাণের স্টলে কথা হয় আলবেনিয়ার জনপ্রিয় চেইন সুপারশপ ‘ল্যারিক্যাফে’-এর পরিচালক (স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড বিজনেস ডেভেলপমেন্ট) কৃষ্টি কুরকুর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আমাদের ১৫০টি সুপারশপ আছে যেখানে আমরা শিশুদের জন্য খাদ্যপণ্য খুঁজছি।

    আমাদের সুপারশপের জন্য প্রাণের ললিপপ, ওয়ান্ডার কিডসসহ কিছু কনফেকশনারি আইটেম ক্রয়ের অর্ডার দিয়েছি। ’অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শহরে ৪০০ আউটলেটে পণ্য সরবরাহ করে দেশটির বৃহৎ কম্পানি এক্সিম মার্কেটিং। প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এজাজ আনোয়ার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা সিডনির বিভিন্ন সুপারশপের জন্য প্রাণের পণ্য নিয়ে থাকি। সিডনিতে অনেক বাংলাদেশি আছে যারা প্রাণের খাদ্যপণ্য কেনে। তবে তাদের চেয়ে এ ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে অনাবাসী ভারতীয়, শ্রীলঙ্কান, পাকিস্তানিসহ অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকরা। ’ এবার প্রাণের কাছ থেকে ৩০ শতাংশ বেশি পণ্য নেবেন বলে তিনি জানান।

    প্রাণ এক্সপোর্ট লিমিটেডের কর্মকর্তারা জানান, প্রাণ পণ্য এখন বিভিন্ন দেশের নামিদামি ব্র্যান্ডের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বিখ্যাত সব চেইনশপে স্থান করে নিয়েছে, যা অত্যন্ত গর্বের বিষয়। কানাডায় ওয়ালমার্ট, সৌদি আরব ও ওমানে ক্যারিফোর, যুক্তরাজ্যে পাউন্ডল্যান্ড, ভারতে রিলায়েন্স ফ্রেশ ও সিটিমার্ট, কাতারে গ্র্যান্ডমল ও আনসার গ্যালারি, সিঙ্গাপুরে জায়ান্ট ও শিংশিয়ং এবং মালয়েশিয়ায় টেসকো, এইওন ও সেগি ফ্রেশের মধ্যে উল্লেখযোগ্য।

    প্রাণ এক্সপোর্ট লিমিটেডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, “বিশ্ববাজারে বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছে প্রাণ। বিশ্বের অভিজাত সুপারশপগুলোতে প্রতিদ্বন্দ্বী ব্র্যান্ডের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে জায়গা করে নিয়েছে আমাদের খাদ্যপণ্য। আমরা আনুগা মেলায় এমন বেশ কিছু সুপারশপের সঙ্গে পণ্য সরবরাহের আদেশ পেয়েছি। ফলে আগামীতে আরো কিছু নামিদামি সুপারশপে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ লেখা প্রাণ পণ্য পাওয়া যাবে। ”

    তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছ থেকে পণ্য নিয়ে বিশ্বখ্যাত নানা ব্র্যান্ড নিজস্ব নামেও পণ্য বাজারজাত করছে। চাহিদা অনুযায়ী পণ্য সরবরাহে হিমসিম খেতে হচ্ছে। মেলায় প্রাণের পাঁচ শতাধিক পণ্য প্রদর্শিত হচ্ছে। গত দুই দিন আনুগা প্রদর্শনী কেমন কাটল জানতে চাইলে প্রাণের সিনিয়র ম্যানেজার, এক্সপোর্ট ও আফ্রিকা অঞ্চলের প্রধান জে কবির সাকিব বলেন, ‘মেলার দ্বিতীয় দিনে আফ্রিকা অঞ্চলের ২০টি দেশ থেকে সবচেয়ে বেশি ক্রেতা এসেছে।

    আনুগা প্রদর্শনীতে একটি স্টলে অংশ নেয় বাংলাদেশি কম্পানি সজিব গ্রুপ। হাসেম ফুডসের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার মো. জিয়াউর রহমান জানান, এবার তাঁরা প্রথম এসেছে। মেলায় ৩৫টি পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে।

    BD-Lamp-Logo
    Phonix-logo-270