28 C
Dhaka
মার্চ ৩০, ২০২০
Latest BD News – Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
শেয়ার বাজার

ডেল্টা হসপিটালের বিডিং শেষ হলেও আটকে গেলো কাট-অফ প্রাইস প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুঁজিবাজার থেকে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে ৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করার প্রক্রিয়ায় থাকা ডেল্টা হসপিটাল লিমিটেডের নিলাম বা বিডিং আজ ২৫ মার্চ বিকাল ৫টায় শেষ হয়েছে। ব্যাংক সেটেলমেন্ট জটিলতায় আটকে গেছে ডেল্টা হসপিটালের বিডিংয়ের তথ্য প্রকাশ। যাতে বিডিং শেষেও কোম্পানিটির কাট-অফ প্রাইসের তথ্য অপ্রকাশিত থেকে যাচ্ছে।ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, কোম্পানিটির নিলাম বা বিডিং গত ২২ মার্চ,  বিকাল ৫টায় শুরু হয়েছিল;  নিলামের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাট-অফ প্রাইস নির্ধরণ করা হবে। এরপরেই বিডিংয়ের তথ্য প্রকাশের জন্য সময় নির্ধারিত ছিল। কিন্তু সেটেলমেন্ট জটিলতার কারনে সম্ভাব্য আগামি ৬ এপ্রিল (সরকারি ছুটির পরে) বিডিংয়ের তথ্য প্রকাশ করা হবে। তবে সরকারি ছুটি বাড়লে পিছিয়ে যাবে বিডিংয়ের তথ্য প্রকাশ।

পাবলিক ইস্যু রুলস অনুযায়ি, নিলামে অংশগ্রহনকারীদেরকে টাকা অগ্রিম প্রদান করতে হয়। এক্ষেত্রে একজন বিডার যে পরিমাণ দর প্রস্তাব করবেন, সে পরিমাণ অর্থ আগেই ডিএসইর ব্যাংক হিসাবে পে অর্ডারের মাধ্যমে জমা দিতে হয়।

জানা গেছে, ডেল্টার নিলামে অংশ নেওয়া কিছু দর প্রস্তাবকারীর টাকা এখনো ডিএসইর ব্যাংক হিসাবে ঢুকেনি। এই সেটেলমেন্ট জটিলতার কারনেই বিডিং শেষেও ডেল্টার কাট-অফ প্রাইসের তথ্য প্রকাশ করা হচ্ছে না। কারন ওইসব দর প্রস্তাবকারীদের টাকা ডিএসইর ব্যাংক হিসাবে গেলে কাট-অফ প্রাইস গণনায় তাদের দর প্রস্তাবকে বিবেচনায় নেয়া হবে। অন্যথায় তাদের দর প্রস্তাব বাতিল হবে । যে কারনে ওইসব দর প্রস্তাবকারীদের টাকার ব্যাংক সেটেলমেন্ট না হওয়া পর্যন্ত কাট-অফ প্রাইস নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না।

এর আগে কোম্পানিটিকে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে নিলামের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রি এবং কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

কোম্পানিটি আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৫০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। আর এই অর্থ কোম্পানির যন্ত্রপাতি ক্রয় , ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও আইপিওর ব্যয় মেটাতে কাজে লাগানো হবে।

সর্বশেষ অর্থবছরে কোম্পানিটির ভারিত গড় হিসাবে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ১ টাকা ৯১ পয়সা। আর ৩০ জুন, ২০১৯ তারিখে শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (পুনর্মুল্যায়ন সঞ্চিতিসহ) ছিল ৪৫ টাকা ৮৫ পয়সা। আর পুনর্মুল্যায়ন সঞ্চিতি ছাড়া শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য ছিল ১৬ টাকা ৬২ পয়সা।

কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্বে আছে প্রাইম ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। এবং রেজিস্টার টু দ্য ইস্যুর দায়িত্বে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

কর্পোরেট সংবাদ/টিডি


আরো খবর »

ইস্টার্ন ব্যাংকের বোর্ড সভা ৫ এপ্রিল

Tanvina

ন্যায্য মূল্যেই হয়েছে ওয়ালটন শেয়ারের বিডিং : বিনিয়োগকারীদের অভিমত

উজ্জ্বল

৬ লাখ টাকায় পাওয়া যাবে ট্রেক সনদ

Tanvina