24 C
Dhaka
এপ্রিল ৩, ২০২০
Latest BD News – Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
ধর্ম ও জীবন

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মসজিদে নামাজ স্থগিত যেসব দেশে

কর্পোরেট ডেস্ক : মুসলিম সম্প্রদায়ের সপ্তাহিক জুমআর নামাজ আদায় করতে মসজিদে একত্রিত হয় হাজারো মুমিন মুসলমান। সম্প্রতি করোনাভাইরাস প্রতিরোধের সতর্কতায় বিশ্বব্যাপী অনেক মসজিদে নামাজ আদায় স্থগিত করা হয়েছে। সৌদি আরবও মক্কা-মদিনার জিয়ারত এবং ওমরাহ কার্যক্রম স্থগিত করেছে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রায় ৬০টি দেশ। এ রোগে ২ হাজার ৯৭৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ৮৬ হাজার ৫২৯ জন। চীন, দক্ষিণ কোরিয়া ও ইরানে এর প্রকোপ সবচেয়ে বেশি।

দক্ষিণ কোরিয়ার সব মসজিদ এবং ইরানের কিছু মসজিদসহ বিশ্বের অনেক দেশের মসজিদ, গির্জাসহ অনেক ধর্মীয় প্রার্থনা সভা বন্ধ রয়েছে। ভাইরাস আতঙ্কে বিদেশের অনেক মসজিদে ‘আল্লাহু আকবার’ আজানের ধ্বনিও শোনা যাচ্ছে না।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দেশসমূহের মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়া মারাত্মক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। দেশটিতে প্রায় ৩ হাজার ১৫০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। মারা গেছে ১৭ জন। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ কোরিয়া মুসলিম ফেডারেশন এক জরুরি নোটিশ জারি করে সব মসজিদে জুমআ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলে কেন্দ্রীয় মসজিদসহ আনসান এবং আনিয়ং মসজিদে গত শুক্রবার জুমআ আদায় হয়নি। হচ্ছে না নিয়মিত আজান। বন্ধ রাখা হয়েছে ৫ ওয়াক্ত নামাজ।

দক্ষিণ কোরিয়ার আনসান ও আনিয়াং মসজিদের মেইন গেট বন্ধ রাখা হয়েছে। শুক্রবার প্রায় ৫০০ মানুষ একত্রিত হয়। কোরিয়ার মুসলিম ফেডারেশন ও প্রশাসনের নির্দেশে জুমআ বন্ধ রাখা হয়। মুসল্লিদের নিয়মিত নামাজে আসাও স্থগিত রাখা হয়েছে।

গত ৫০ বছরে দক্ষিণ কোরিয়াতে মুসলমানদের সংখ্যা প্রায় ৫৪ গুণ বেড়েছে। ১৯৬৫ সালে যখন কোরিয়া মুসলিম ফেডারেশন স্থাপিত হয়, তখন মুসলমানের সংখ্যা ছিল মাত্র ৩ হাজার ৭০০। বর্তমানে তা দাঁড়িয়েছে ২ লাখের কাছাকাছি। শুধু দক্ষিণ কোরিয়ার শিউলেতে প্রায় ৭০ হাজার স্থানীয় মুসলিম রয়েছে। বিদেশি কর্মজীবী মুসলিম রয়েছে প্রায় দেড় লাখের মতো। তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কোরিয়া মুসলিম ফেডারেশন ও প্রশাসন কর্তৃপক্ষ।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ইরানও শুক্রবারের জুমার নামাজ ও অন্যান্য জমসমাগম বাতিল করা হয়েছে।

গত সোমবার সিঙ্গাপুরের মুসলিমবিষয়ক মন্ত্রী মাসাগোস জুলকিফলি দেশটির মসজিদে নামাজ পড়তে প্রত্যেককেই নিজেদের জন্য আলাদা আলাদা ম্যাট্রেস (মুসাল্লা) ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন। পারস্পরিক সাক্ষাতে একে অপরের সঙ্গে হ্যান্ডশেক করতেও নিষেধ করেছেন তিনি। সিঙ্গাপুরের সব গির্জায় ধর্মীয় প্রার্থনাসহ সব কার্যক্রম বন্ধ ২ সপ্তাহের জন্য ঘোষণা করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মালয়েশিয়ার পুত্রা মসজিদ ও ফেডারেল টেরিটরি মসজিদে সাময়িক সময়ের জন্য পর্যটকদের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে মসজিদগুলো স্থানীয়দের ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মসজিদ, গির্জা ও মন্দিরসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত জিনিসপত্রের ব্যাপারে যেমন সতর্কতা অবলম্বন জরুরি তেমনি পারস্পরিব দেখা-সাক্ষাতে আপাতত হ্যান্ডশেক, কোলাকুলি ইত্যাদি থেকে বিরত থাকাও আবশ্যক।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহসহ বিশ্বব্যাপী সব মানুষকে করোনাভাইরাস থেকে হেফাজত করুন। এ ভারইরাস প্রতিরোধে কার্যকরী ব্যবস্থাগ্রহণের তাওফিক দান করুন। আমিন।

কর্পোরেট সংবাদ/টিডি


আরো খবর »

কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যাক্তিদের জন্য বিশ্বনবির সুসংবাদ

Tanvina

হজ নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

উজ্জ্বল

ওমর (রা.) মহামারি থেকে যেভাবে বেঁচে ছিলেন

উজ্জ্বল