31 C
Dhaka
এপ্রিল ৮, ২০২০
Latest BD News – Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
আর্কাইভ জাতীয়

রোহিঙ্গাদের ত্রাণ বিতরণ করলেন রীভা গাঙ্গুলি

নিজস্ব প্রতিবেদক: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের জন্য পঞ্চম দফায় ত্রাণ সহায়তা দিল প্রতিবেশী দেশ ভারত। ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে প্রধানমন্ত্রীর দিল্লি সফরের সময় দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এ সহায়তা দিল ভারত। কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গাক্যাম্পে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এই ত্রাণ সামগ্রী তুলে দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ও ত্রাণ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ কামাল, শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রতাবাসন কমিশনার মো. মাহবুব আলম তালুকদারসহ দেশি-বিদেশি এনজিও প্রতিনিধিরা।

ভারত পঞ্চম দফার ত্রাণ হিসেবে এক হাজার পায়ে চালিত সেলাই মেশিন, ৩২টি সাধারণ তাঁবু, ১০০টি ফ্যামিলি তাঁবু ও জীবনরক্ষাকারী সরঞ্জাম তুলে দেয়া হয়। বাংলাদেশের ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় এ কার্যক্রমে সব ধরনের সহযোগিতা করে।

সকালে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে একটি ফ্লাইটে কক্সবাজার এসে পৌঁছান ভারতের হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ। এ সময় তার সঙ্গে চট্টগ্রাম অ্যাসিস্ট্যান্ট হাইকমিশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট হাইকমিশনার অনিন্দ ব্যানার্জি, হাইকমিশনের দ্বিতীয় সচিব দীপ্তি আলাংঘাট, অ্যাটাশে (প্রেস) দেবব্রত পালসহ অনেকে ছিলেন।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য এর আগে ২০১৭ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর প্রথম দফায় অপারেশন ইনসানিয়াতের আওতায় ৫৩ টন খাদ্য সামগ্রী পাঠায় ভারত। তার মধ্যে ছিল চাল, ডাল, চিনি, লবণ, বিস্কুট, গুঁড়ো দুধ, নুডলস, সাবান, মশারি ও তেল। আবারো দ্বিতীয় দফায় ১০৪ মেট্রিক টন গুঁড়ো দুধ, ১০২ মেট্রিক টন শুঁটকি মাছ, ৬১ মেট্রিক টন শিশুখাদ্য, ৫০ হাজার রেইনকোট এবং ৫০ হাজার গামবুট পাঠায় ভারত। যা চট্টগ্রামে হস্তান্তর করেন তৎকালীন হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। পরে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে তৃতীয় দফায় ১০ লাখ ১০ হাজার লিটার কেরোসিন তেল ও ২০ হাজার স্টোভ দেওয়া হয়। চতুর্থ চালানে ভারতীয় ত্রাণ সহায়তার ছিল দুই লাখ ২৫ হাজার কম্বল, দুই লাখ উলের সোয়েটার ও পাঁচশ সৌর সড়কবাতি। বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে চতুর্থ পর্যায়ের ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হয়।

২০১৭ সালের ২৫শে অগাস্ট বাংলাদেশ অভিমুখে শরণার্থীদের আসা শুরু করে। বাংলাদেশে এখন প্রায় এগারো লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী আছে।


আরো খবর »

নতুন আইজিপি বেনজীর ও র‌্যাব ডিজি মামুন

*

গাজীপুরে করোনার উপসর্গ নিয়ে ৩ জনের মৃত্যু

উজ্জ্বল

ইডিএফ ফান্ডের সুদ কমলো

*