হোম বিনোদন এটি এম শামসুজ্জামানের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী

    এটি এম শামসুজ্জামানের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী

    সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : at 1:14 pm
    292
    0
    এ টি এম

    বিনোদন ডেস্ক: বরেণ্য অভিনেতা এটি এম শামসুজ্জামানের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একুশে পদকজয়ী এই অভিনেতার চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ১০ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়েছে। আজ সোমবার (১৩ মে) সকালে আজগর আলী হাসপাতালে তাঁর মেয়ে কোয়েলের হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারি ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া। এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া চান কোয়েল আহমেদ।

    চেক প্রদানকালে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন, সংগীত শিল্পী রফিকুল আলম, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানাসহ অন্যরা।

    ডা. সামন্তলাল সেন বলেন, এ টি এম শামসুজ্জামানের চিকিৎসা আপাতত দেশেই হবে। এ ব্যাপারে তাঁর পরিবারের সম্মতি রয়েছে। তবে হাসপাতাল পরিবর্তন হতে পারে। আগের থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে।

    উল্লেখ্য, গত ২৬ এপ্রিল রাতে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন এটি এম শামসুজ্জামান। শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। ওইদিন রাত ১১টার দিকে তাঁকে রাজধানীর গেণ্ডারিয়ার আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন দুপুরে প্রায় তিন ঘণ্টার অপারেশন শেষে তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। এরপর অবস্থার আরো অবনতি হলে ৩০ এপ্রিল থেকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় কিংবদন্তি এই অভিনেতাকে। এর পর থেকে লাইফ সাপোর্টে আছেন তিনি।

    মাঝখানে একবার লাইফ সাপোর্ট খুলে দেওয়া হলে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে অবস্থা বেগতিক দেখে আবারও তাঁকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়। গতকাল শনিবার সকাল থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থা তুলনামূলকভাবে ভালো থাকায় লাইফ সাপোর্ট যন্ত্র খুলে নেওয়া হয়েছে। তবে এখনও তিনি বিপদমুক্ত নন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

    ১৯৬১ সালে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে সহকারী পরিচালক হিসেবে ঢালিউডে যাত্রা শুরু হয় এ টি এম শামসুজ্জামানের। ‘জলছবি’ ছবিতে প্রথম কাহিনী ও চিত্রনাট্যকার হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। ১৯৬৫ সালের দিকে অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ ছবিতে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে ১৯৭৬ সালে আলোচনায় আসেন তিনি।

    ২০১৫ সালে শিল্পকলায় অবদানের জন্য রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা একুশে পদক পান গুণী এই অভিনেতা। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন পাঁচবার। এ টি এম শামসুজ্জামান অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো হলো ‘লাঠিয়াল’, ‘সূর্য দীঘল বাড়ি’, ‘দায়ী কে?’, ‘ম্যাডাম ফুলি’, ‘চুড়িওয়ালা’, ‘মন বসে না পড়ার টেবিলে’, ‘মোল্লা বাড়ির বউ’ ইত্যদি।

    আরও পড়ুন:

    ‘আমার জীবন পারফেক্ট নয়’, কেন বললেন রচনা?

    এটিএম শামসুজ্জামানের মৃত্যুর গুজবে বিরক্ত পরিবার