হোম আর্কাইভ ডিএসইতে গড় লেনদেন বেড়েছে ৩৭.৩৬ শতাংশ

ডিএসইতে গড় লেনদেন বেড়েছে ৩৭.৩৬ শতাংশ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : at 11:16 am
123
0
dse ‍a

শেয়ারবাজার ডেস্ক: দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ( ডিএসই) গত সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন বেড়েছে ৩৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ। মোট লেনদেন বেড়েছে ১২৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ। তবে গত সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে। সূত্র: ডিএসই।

সূত্র মতে, আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় তিন কার্যদিবস। গত সপ্তাহে সবগুলো সূচকের উত্থান হয়। ডিএসইএক্স সূচক বেড়েছে প্রায় ২০৭ পয়েন্ট। গত সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসে মধ্যে চার দিন সূচক ঊর্ধ্বমুখী ছিল। একদিন কমেছে। বাজার মূলধন ইতিবাচক অবস্থানে ছিল। বেড়েছে ৭৫ শতাংশ শেয়ারদর। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সাপ্তাহিক লেনদেনে একই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে।

Spellbit Limited

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২০৬ দশমিক ৮৩ পয়েন্ট বা তিন দশমিক ৭০ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ৭৯৭ দশমিক ৩০ পয়েন্টে স্থির হয়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক ৪৭ দশমিক ৩০ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৭২ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৩১৮ দশমিক ৬৬ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএস ৩০ সূচক ৬৯ দশমিক ৭৫ পয়েন্ট বা তিন দশমিক ৫৯ শতাংশ বেড়ে দুই হাজার ১১ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে স্থির হয়। মোট ৩৪৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২৬১টির, কমেছে ৭৯টির এবং অপরিবর্তিত ছিল সাত কোম্পানির শেয়ারদর। লেনদেন হয়নি দুটির। দৈনিক গড় লেনদেন হয় ৯৮৫ কোটি ১২ লাখ ৯২ হাজার ৮২৫ টাকার। আগের সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন হয় ৭১৭ কোটি ১৮ লাখ এক হাজার ৩৫৬ টাকার। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দৈনিক গড় লেনদেন বেড়েছে ২৬৭ কোটি ৯৪ লাখ ৯১ হাজার টাকা বা ১২৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট টার্নওভার বা লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় চার হাজার ৯২৫ কোটি ৬৪ লাখ ৬৪ হাজার ১২৭ টাকা। আগের সপ্তাহে যা ছিল দুই হাজার ১৫১ কোটি ৫৪ লাখ চার হাজার ৬৭ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে টার্নওভার বেড়েছে দুই হাজার ৭৭৪ কোটি ১০ লাখ ৬০ হাজার টাকা বা ১২৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

ডিএসইতে গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার বাজার মূলধন ছিল তিন লাখ ৯৭ হাজার ৮৪৩ কোটি ১১ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। শেষ কার্যদিবসে যার পরিমাণ ছিল চার লাখ ১০ হাজার ৫৩১ কোটি ৯১ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে তিন দশমিক ১৯ শতাংশ বা ১২ হাজার ৬৮৮ কোটি টাকা।

গত সপ্তাহে ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির দর ৪১ দশমিক ৬১ শতাংশ বেড়েছে। তালিকায় এর পরের অবস্থানগুলোতে থাকা ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্সের দর ৩২ দশমিক ৭৯ শতাংশ, জেএমআই সিরিঞ্জের দর ২৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ বেড়েছে। নর্দান জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের দর ২৩ দশমিক ৪৪ শতাংশ এবং সিভিও পেট্রোক্যামিকেলের দর ২২ দশমিক শূন্য চার শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের দর ২১ দশমিক ১১ শতাংশ, প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের দর ২০ দশমিক ১৮ শতাংশ, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের দর ১৯ দশমিক ৮০ শতাংশ, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের দর ১৯ দশমিক ১১ শতাংশ ও আলহাজ্জ টেক্সটাইলের দর ১৯ দশমিক শূন্য আট শতাংশ বেড়েছে।

অন্যদিকে ১২ দশমিক ১৫ শতাংশ কমে সাপ্তাহিক দরপতনের শীর্ষে অবস্থান করে স্টাইল ক্রাফট। বঙ্গজ লিমিটেডের দর ১০ দশমিক ৬৭ শতাংশ, অ্যাডভেন্ট ফার্মার দর আট দশমিক ৮০ শতাংশ, সায়হাম টেক্সটাইল কোম্পানির দর সাত দশমিক ৮৪ শতাংশ, ফাইন ফুডসের দর সাত দশমিক ৫০ শতাংশ, এমএল ডায়িংয়ের দর সাত দশমিক ৪৯ শতাংশ, কাট্টলি টেক্সটাইলের দর সাত দশমিক ২৭ শতাংশ, ইন্দোবাংলা ফার্মার দর সাত দশমিক ২৩ শতাংশ, সিলভা ফার্মার দর সাত দশমিক ১৬ শতাংশ ও এসকে ট্রিমসের দর ছয় দশমিক ৬১ শতাংশ কমেছে।

ডিএসইতে টার্নওভারের দিক থেকে শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো বিবিএস কেব্লস, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, ব্র্র্যাক ব্যাংক, বেক্সিমকো লিমিটেড, জেএমআই সিরিঞ্জ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, অ্যাকটিভ ফাইন, সিঙ্গার বাংলাদেশ, খুলনা পাওয়ার, ড্রাগন সোয়েটার।

অন্যদিকে দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৯৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২২১টির, কমেছে ৭৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৪টির দর।

সিএসইতে গত সপ্তাহে সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স বেড়েছে তিন দশমিক ৪৬ শতাংশ। এছাড়া সিএএসপিআই সূচক বেড়েছে তিন দশমিক ৪৮ শতাংশ, সিএসই৫০ সূচক চার দশমিক শূন্য তিন শতাংশ এবং সিএসআই সূচক তিন দশমিক ৯০ শতাংশ বেড়েছে। সিএসই ৩০ সূচক বেড়েছে চার দশমিক ৩৫ শতাংশ।

সিএসইতে গেলো সপ্তাহে টার্নওভারের পরিমাণ দাঁড়ায় ২৬৪ কোটি ৬২ লাখ ১১ হাজার ৭৬২ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ১২৪ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে মাত্র তিন কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে।

৪৫ দশমিক ৮৩ শতাংশ বেড়ে সিএসইতে সাপ্তাহিক টপ টেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স। এরপরের অবস্থানগুলোতে ছিল জেএমআই সিরিঞ্জ, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্স, এক্সিম ব্যাংক, বিডি ফাইন্যান্স, সোনারবাংলা ইন্সুরেন্স, ফার্স্ট ফাইন্যান্স, সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল, এমারেল্ড অয়েল, সমতা লেদার।

অন্যদিকে টপটেন লুজার তালিকায় উঠে আসে সায়হাম টেক্সটাইল। আরামিট সিমেন্ট, বঙ্গজ লিমিটেড, অ্যাডভেন্ট ফার্মা, সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস, ইমাম বাটন, ফাইন ফুডস, এমএল ডায়িং, ইন্দোবাংলা ফার্মা ও কাট্টলি টেক্সটাইল। সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা, বেক্সিমকো লিমিটেড, নাহি অ্যালুমিনিয়াম, ন্যাশনাল ব্যাংক, আইপিডিসি ফাইন্যান্স, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, ভিএফএস থ্রেড ডায়িং ও ড্রাগন সোয়েটার।

আরও পড়ুন: ব্লক মার্কেটে সাপ্তাহিক লেনদেনের শীর্ষে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলস