হোম আর্কাইভ ফের ৬৮ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি

ফের ৬৮ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : at 1:14 pm
563
0
ফেসবুক

ডেস্ক রির্পোট: একের পর এক তথ্য কেলেঙ্কারির কারণে চাপে রয়েছে ফেসবুক। তীব্র সমালোচনার মুখে গ্রাহক তথ্যের সুরক্ষাদানে গৃহীত নানা পদক্ষেপও কাজে দিচ্ছে না। টানাপড়েনের মধ্যেই গত শুক্রবার আবার ৬৮ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য বেহাত হওয়ার কথা জানিয়েছে ফেসবুক। এবার একটি ফটো অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং ইন্টারফেসে (এপিআই) ত্রুটির কারণে ফেসবুকে শেয়ার করা হয়নি, এমন ছবি তৃতীয় পক্ষের ডেভেলপ করা অন্তত ১ হাজার ৫০০ অ্যাপে ছড়িয়ে পড়ার তথ্য জানানো হয়েছে। এ অবস্থায় প্রশ্ন উঠছে ফেসবুকের ভবিষ্যৎ কী?

ফেসবুকের খারাপ দিনের সূচনা চলতি বছরের শুরুর দিকে। গত মার্চে ব্রিটিশ রাজনৈতিক পরামর্শক ও তথ্য বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার মাধ্যমে সোস্যাল মিডিয়া প্রতিষ্ঠানটির বিপুলসংখ্যক ব্যবহারকারীর তথ্য বেহাত হওয়ার ঘটনা প্রকাশিত হয়। শুরুতে পাঁচ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য বেহাতের কথা বলা হয়। তবে পরবর্তীতে ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মোট ৮ কোটি ৭০ লাখ ব্যবহারকারীর তথ্য হাতিয়ে নেয়া হয়েছে।

Spellbit Limited

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার একটি অ্যাপ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছিল ফেসবুক, যা প্রতিষ্ঠানটির জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। গোপনে ওই অ্যাপের মাধ্যমে কোটি কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে প্রতিষ্ঠানটি। এসব তথ্য গত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচারের কাজে ব্যবহার করা হয়।

গত শুক্রবার ফেসবুক জানায়, তাদের প্লাটফর্মের একটি এপিআইতে ত্রুটির কারণে ব্যবহারকারীরা ফেসবুকে শেয়ার করেননি, এমন ছবি তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ ডেভেলপারদের হাতে পৌঁছেছে। ফেসবুক ব্যবহারকারীরা ফটোতে প্রবেশের অনুমতি দিয়েছেন, এমন অন্তত দেড় হাজারের বেশি অ্যাপ ডেভেলপারের হাতে পৌঁছেছে এসব ছবি।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষের বিবৃতি অনুযায়ী, গত ১৩-২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তাদের প্লাটফর্মের একটি অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং ইন্টারফেসে ত্রুটি শনাক্ত করা হয়। যে কারণে প্রায় ৮৭৬ ডেভেলপারের দেড় হাজার অ্যাপে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ছবি ছড়িয়ে পড়ে। তবে ব্যবহারকারীরা মেসেঞ্জারের মাধ্যমে যেসব ছবি শেয়ার করেছেন, সেগুলো আক্রান্ত হয়নি। এপিআইতে ত্রুটি শনাক্তের পর ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই তা ঠিক করা হয়েছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের নতুন জেনারেল ডাটা প্রোটেকশন রেগুলেশন (জিডিপিআর) আইন অনুযায়ী, সোস্যাল মিডিয়া ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোকে সর্বোচ্চ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে গ্রাহক তথ্য বেহাতের ঘটনা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। ফেসবুক বলছে, সাম্প্রতিক ত্রুটি শনাক্তের পর তা জনসম্মুখে প্রকাশের আগে এর প্রভাব অনুসন্ধানে তারা কিছুটা সময় নিয়েছে। তবে জিডিপিআরের স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী, গত ২২ নভেম্বর এ ঘটনা আইরিশ ডাটা প্রোটেকশন কমিশনকে (আইডিপিসি) জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেন, আমরা প্লাটফর্মের এপিআইতে ত্রুটি শনাক্তের পর তদন্ত শুরু করি। বিভিন্ন দিক বিবেচনায় আমরা মনে করেছি এ ঘটনা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা প্রয়োজন। প্রভাব পর্যালোচনা শেষে আইডিপিসিকে জানিয়েছি।

আইডিপিসির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারা ফেসবুকের সাম্প্রতিক তথ্য বেহাতের ঘটনা পর্যালোচনা শুরু করেছে।

আইডিপিসির হেড অব কমিউনিকেশন্স গ্রাহাম ডয়েল বলেন, গত ২৫ মে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নতুন জিডিপিআর কার্যকর হওয়ার পর ফেসবুকের কাছ থেকে তারা একাধিক তথ্য বেহাতের ঘটনা সম্পর্কে অবহিত হয়েছেন। আমরা চলতি সপ্তাহেই এসব বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করেছি।

ফেসবুকের তথ্যমতে, সোস্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মটির এপিআই ত্রুটির কারণে ভুক্তভোগী ব্যবহারকারীদের এরই মধ্যে সতর্ক করা হয়েছে। এছাড়া কেউ আক্রান্ত হয়েছেন কিনা, তা নিজে থেকে দেখে নেয়ার টুল সরবরাহ করা হয়েছে। ফেসবুক ফটোতে প্রবেশের অনুমতি চায়, এমন তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ ইন্সটলের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। অনাকাঙ্ক্ষিত এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ধারাবাহিকভাবে ব্যবহারকারীদের তথ্য বেহাত হওয়ার বিষয় সামনে আসতে থাকার বিষয়ে এরই মধ্যে ক্ষমা চেয়েছেন ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ। ফেসবুকের নিরাপত্তা ত্রুটি দূর করতে কয়েক বছর সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ফেসবুকের ব্যবসা মডেল ও ব্যবহারকারীর তথ্য ব্যবহারের সমালোচনার জবাবে তিনি বলেন, ফেসবুকের গুরুত্বপূর্ণ একটি সমস্যা বলে যাকে মনে করা হচ্ছে, তা হলো ‘আদর্শগত’। বিশ্বের অসংখ্য মানুষকে ইন্টারনেটের আওতায় আনতে নিরলস কাজ করে আসছে ফেসবুক। এটা ঠিক, সোস্যাল মিডিয়া সাইটটি ব্যবহারের নেতিবাচক দিকগুলোয় খুব বেশি সময় দেয়া হয়নি। বিষয়টি নিয়ে খুব বেশি ভাবেনি কর্তৃপক্ষ। প্রযুক্তির প্রতিটি অনুষঙ্গের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক রয়েছে। ফেসবুকও এর বাইরে নয়। ফেসবুক ব্যবহারের বেশকিছু নেতিবাচক দিক এখন সামনে আসছে। বিশ্বব্যাপী এখন ফেসবুকের বিদ্যমান দুর্বলতাগুলো নিয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে। এপি ও বিবিসি।

আরও পড়ুনঃ
অস্বাস্থ্যকর খাবার থেকে নিজেকে বিরত রাখার উপায়
জেনে নিন, পেয়ারার পুষ্টিগুণ সম্পর্কে