হোম আর্কাইভ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসেবে বোনাস পাঠিয়েছে মেঘনা সিমেন্ট

বিনিয়োগকারীদের বিও হিসেবে বোনাস পাঠিয়েছে মেঘনা সিমেন্ট

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : at 10:57 am
166
0

শেয়ারবাজার ডেস্ক: পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত সিমেন্টে খাতের কোম্পানি সিমেন্ট খাতের কোম্পানি মেঘনা সিমেন্ট মিলস লিমিটেড ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাববছরের ঘোষিত বোনাস লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসাবে পাঠিয়েছে। সূত্র: ডিএসই।

৩০ জুন ২০১৮ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরে নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে তিন টাকা ৬২ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৮ টাকা ৩৩ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে আট কোটি ১৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

Spellbit Limited

গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর দশমিক ৭৭ শতাংশ বা ৭০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৯০ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৯০ টাকা ৭০ পয়সা। দিনজুড়ে ৫৩ হাজার ৪০টি শেয়ার মোট ১৮৮ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৪৮ লাখ ২২ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর ৯০ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ৯১ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৮৮ টাকা থেকে ১২৯ টাকায় ওঠানামা করে।

৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময় কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৯১ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৩৬ টাকা ৭১ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ছয় কোটি ৫৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ১৮) ইপিএস হয়েছে ৪৯ পয়সা। এটি আগের বছরের একই সময় ছিল ২২ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ২৭ পয়সা। ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ৩৮ টাকা ৮২ পয়সা, যা একই বছরের ৩০ জুন সময় ছিল ৩৮ টাকা ৩৩ পয়সা।

কোম্পানিটির ৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৬১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট দুই কোটি ৪৭ লাখ ৫০ হাজার ৪৪০টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৪৯ দশমিক ৭৭ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ৩২ দশমিক ৮৯ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে বাকি ১৭ দশমিক ৩৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। উল্লেখ্য, কোম্পানিটি ১৯৯৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে।

আরও পড়ুন: বিনিয়োগকারীদের বিও হিসেবে বোনাস পাঠিয়েছে ড্রাগন সোয়েটার