রূপচর্চায় চা-কফি
কর্পোরেট সংবাদ
প্রকাশকালঃ ২০১৬.১২.২৪ ১৭:০৫:৫২

ঝলমলে সুন্দর থাকতেও যে চা-কফিকে কাজে লাগানো যেতে পারে, চট করে সেটা মাথায় আসবেই না। সে জন্যই রইল টিপস।

কফি আর মধু দিয়ে বানিয়ে ফেলুন ফেস মাস্ক। দুটো উপকরণ পরিমাণ মতো মিশিয়ে মুখে-গলায় সার্কুলার মোশনে ম্যাসেজ করে নিন। ১০-১৫ মিনিট রেখে দিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। কফি ত্বকের ধূলা-ময়লা এবং মৃত কোষ ঝরিয়ে ফেলতে সাহায্য করে। মধু ময়েশ্চারাইজার হিসেবে দারুণ। সপ্তাহে একদিন এই প্যাক ব্যবহার করলে ভালো ফল পাবেন।

চুল ধোয়ার জন্য চা-পাতা ব্যবহার করলে চুলে বাড়তি ঔজ্জ্বল্য আসবে। ফুটিয়ে নেওয়া চা-পাতা আরেকবার ফোটান। এতটা পানি নিন, যাতে ফোটানোর পর তিন-চার কাপ মিশ্রণ তৈরি হয়। ঠাণ্ডা করে ছেঁকে নিন। এবার সেই পানিতে একটা গোটা লেবুর রস মেশান। শ্যাম্পু করার পর শেষ বার চুল ধোওয়ার সময় এই মিশ্রণটা ব্যবহার করুন।

হেয়ার রিন্স হিসেবে কফিও কিন্তু কম কাজের নয়! চার কাপের মতো এসপ্রেসো বানিয়ে নিন। ঠাণ্ডা করুন। এবার চুল ধোওয়া এবং কন্ডিশনিংয়ের পালা শেষ হলে ধীরে ধীরে চুলে ঢেলে নিন কফিটা। খানিকক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বক ঝলমলে করতে লাগাতে পারেন গ্রিন টি দিয়ে তৈরি মাস্ক। সমপরিমাণ গ্রিন টি আর কোকো পাউডারের সঙ্গে মিশিয়ে নিন এক টেবিল-চামচ আমন্ড অয়েল। মুখে ২০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। 

এক কাপ গুঁড়িয়ে নেওয়া কফির সঙ্গে মেশান আধ কাপ ব্রাউন শুগার অথবা এমন চিনি এবং এক কাপ নারকেল তেল। গা ধোওয়ার পর ভিজে গায়েই লাগিয়ে নিন। সেলুলাইটের সমস্যায় এই স্ক্রাব ভাল কাজ দেয়।

চোখের ক্লান্তি দূর করতে টি-ব্যাগের তো জুড়ি মেলা ভার! ঠাণ্ডা পানিতে টি-ব্যাগ ডুবিয়ে চোখের উপরে রেখে দিন। ক্লান্তি, ফোলা ভাব কেটে গিয়ে চোখ ফিরে পাবে চেনা জাদু!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *