চেহারার সাথে মিল রেখে ব্যবহার করুন নাকফুল
কর্পোরেট সংবাদ
প্রকাশকালঃ ২০১৬.১২.২৭ ২০:২৬:৪৪

১১ শতাব্দীতে বিয়ের দেবী পার্বতীর প্রতি সম্মান রেখেই নাকে নাকফুল পরা শুরু করেছিল ভারতীয় নারীরা! বিয়ের সময় নাথ (স্বামী) হাত দিয়ে বউকে পরিয়ে দিত নাকফুল। স্বামীর মৃত্যুর পর কন্যাকে খুলতে হত সেই নাকফুল। মেয়েরা বিশ্বাস করত নাকফুল স্বামীকে সুস্থ রাখবে। কোন খারাপ অসুখকে স্বামীর ধারেকাছে আসতে দিবে না।

দিন বদলেছে আজ আর নাকফুল কেবল বিবাহিত নারীর প্রতীক হিসেবে নয় অবিবাহিত নারীর নাকেও শোভা পায় নাকফুল। জিন্স-টপস, শাড়ি, কুর্তা, সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে সাবলীলভাবে মানিয়ে যায় নাকফুল। 

আধুনিক তরুণী থেকে শুরু করে সব বয়সী নারী এখন নাকফুল ফ্যাশনের অনুষঙ্গ হিসেবে ব্যবহার করছে। কিন্তু আগেকার দিনে নারীরা বিবাহিত না অবিবাহিত বোঝা যেত নাকফুল দেখে। এখন সব বয়সী নারীর নাকেই শোভা পায় নাকফুল। আগে শুধু সোনা বা রূপার নাকফুল পরা হলেও বর্তমানে ফ্যাশন অনুষঙ্গ হিসেবে মেয়েরা হীরার ছোট্ট একটি পাথরের নাকফুল বেছে নিচ্ছেন।

বিভিন্ন ধরনের নাকফুল:
নাকফুলের আকারের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন নাকফুল বাজারে পাওয়া যায়। ‘ইউ’ ব্যান্ড, দি লুপ, দি পিন, একাধিক পাথর সহ নাকফুল, দি ক্লাসিক, দি ফ্লাওয়ার প্রভৃতি। এই নাকফুলগুলো আবার ভিন্ন হয় পোস্টের ভিত্তিতে। পোস্ট বলতে বোঝানো হয়, যেটা নাকের ভেতর গেঁথে দেয়া। এই পোস্ট হতে পারে পিন জাতীয়, এল শেপ কিংবা কিংবা স্ক্রু।

পিন নাকফুল পরা সবচেয়ে সহজ। অপরদিকে এল শেপ নাকফুল একটি স্ট্যান্ডের ওপর ভিত্তি করে বানানো হয়, যেটা মাঝে মাঝে বিরক্তির কারণ হয়ে যায়। তবে নিয়মিত যারা নাকফুল বদলান, তাদের জন্য এল শেপ উপযুক্ত। স্ক্রু পোস্ট ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে নাকফুল ঢুকানো হয়, এতে নাকফুল পড়ে যাবার একদমই সম্ভাবনা থাকে না। তাই দামি নাকফুল গুলোতে স্ক্রু জাতীয় পোস্ট ব্যবহৃত হয়।

এছাড়াও নথ হচ্ছে নাকফুলের মধ্যে সবচেয়ে পুরানো। একটু ভারী এবং বড় হয়। আগেকার দিনে বিয়েতে ভারী নোলকেরও প্রচলন ছিল।

যেমন নাকফুল পরবেন:
যাদের নাক ছোট আর খুব বেশি খাড়া নয়, তারা ছোট্ট এক পাথরের নাকফুল পরলে ভালো দেখাবে।

আর যাদের নাক বড়, চোখা তাদের নাকে বড় নাকফুল বেশ মানিয়ে যায়। তবে চাইলে ছোট নাকফুলও পরতে পারেন।

সব সময় পরতে চাইলে ছোট এক পাথরের নাকফুল ব্যবহার করতে পারেন।

আর কোনো উৎসবে পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে বড় নাকফুল পরতে পারেন।

যারা ব্যথার ভয়ে নাক ফোঁড়াতে চান না, তারা ইচ্ছা করলে টিপ নাকফুল পরতে পারেন।

সেক্ষেত্রে দামি নাকফুল পরলে সচেতন থাকতে হবে যেন হারিয়ে না যায়।

লক্ষণীয় বিষয়
* চেহারার সঙ্গে মানানসই নাকফুল কিনুন। মুখ ছোট হলে ছোট নাকফুল ভালো মানায়। আর লম্বা নাক ও বড় মুখের সঙ্গে বড় নাকফুল পরা ভালো। নথ সব মুখের সঙ্গে মানায় না। 
* নাকফুল ব্যবহারের সময় হালকা জেল, ক্রিম জাতিয় কিছু পিনে মেখে নিতে পারেন। তাহলে পিনটি প্রবেশ করানোর সময় ব্যথা বা খোঁচা লাগার সম্ভাবনা থাকবে না। 
* নাকফুল নিয়মিত পরিষ্কার করুন। বিশেষ করে পিনটি। তা না হলে ইনফেকশন হতে পারে। 
* ভারী এবং দীর্ঘস্থায়ী নাকফুল বানাতে বা কিনতে হলে ২১ এবং ১৮ ক্যারেট হলুদ কিংবা সাদা সোনা বেছে নিন। জাঁকালো কোন অনুষ্ঠানের জন্যই শুধু বড় এবং ভারী নাকফুল ব্যবহার করুন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *