Home bd news বিজিআইসিতে এখনও কোম্পানি সেক্রেটারি‘র দায়িত্বে ‘প্রধান নির্বাহী’

বিজিআইসিতে এখনও কোম্পানি সেক্রেটারি‘র দায়িত্বে ‘প্রধান নির্বাহী’

Published:August 8, 2018
bgic


Published: 12:33:26
212
0

নিজস্ব প্রতিবেদক: আমাদের দেশের ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীগুলোর অনিয়ম আর অভিযোগের অন্ত নেই। গ্রাহকদের পাওনা পরিশোধে দীর্ঘসূ্ত্রিতা, অনেক ক্ষেত্রে টাকা না পাওয়ার অভিযোগসহ নানা রকম অভিযোগ করে থাকেন ভুক্তভোগীরা। কিন্তু গ্রাহকের অভিযোগ তথা অনিয়মের সাথে এবার যুক্ত হলো কর্তৃপক্ষের সরাসরি আইন অমান্য করার ঘটনা। দীর্ঘদিন ধরে কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) ছাড়াই চলছে দেশের দুই পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত বিমা খাতের কোম্পানি বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানির প্রথম ও দ্বিতীয় প্রান্তিকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় বিষয়টি স্পষ্ট হয়।
গত ১৫ই মে, ২০১৮ইং তারিখে অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের সভায় প্রথম প্রান্তিকের (৩১ মার্চ, ২০১৮) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনের অনুমোদন দেওয়া হয় এবং এরই প্রেক্ষিতে কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কমকর্তা (সিইও) স্বাক্ষরিত একটি মূল্য সংবেদনশীল তথ্য (পিএসআই) ১৬ মে, ২০১৮ ইং তারিখে একটি পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত বিজ্ঞাপনে কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিজেকে কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) হিসেবে দায়িত্বরত দেখিয়েছেন।
BGIC
আবার, গত ২৯ জুলাই ২০১৮ইং তারিখে অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের সভায় দ্বিতীয় প্রান্তিকের (৩০ জুন ২০১৮) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনের অনুমোদন দেওয়া হয় এবং এরই প্রেক্ষিতে কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কমকর্তা (সিইও) স্বাক্ষরিত একটি মূল্য সংবেদনশীল তথ্য (পিএসআই) ২৯ জুলাই ২০১৮ ইং তারিখে পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত বিজ্ঞাপনে কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিজেকে কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) হিসেবে দায়িত্বরত দেখিয়েছেন। শুধু তাই না, প্রকাশিত বিজ্ঞাপনটি অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হয় একটি দরখাস্তের আকারে। যা প্রচলিত নিয়মের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এছাড়া আজ ৭ই আগস্ট, ২০১৮ তাং পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইট থেকে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায় প্রতিষ্ঠানটি এখন পর্যন্ত কোম্পানি সেক্রেটারি নিয়োগ দেয়নি।
সংযুক্ত মূল্য সংবেদনশীল তথ্যটিতে (পিএসআই) বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিজিআইসি) এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আহাম্মেদ সাইফুদ্দীন চৌধুরী মূল্য সংবেদন তথ্যটি (পিএসআই) কবে, কখন, কোথায় স্বাক্ষর করেছেন সেটি উল্লেখ নেই। অর্থাৎ, কোন প্রফেশনাল কর্মকর্তা এমন সাধারণ ভূল করতে পারে না।

bgic 2nd

বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এর কর্পোরেট গর্ভন্যান্স গাইডলাইনকে আমলে না নিয়ে অনৈতিকভাবে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) পদে থেকে কোম্পানি সেক্রেটারির (সিএস) দায়িত্ব পালন করছেন, যা শুধু নিয়ম অমান্যই নয়, দৃষ্টিকটুও। ফলে বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিজিআইসি) এর মতো যে সমস্ত কোম্পানি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কর্তৃক ইস্যুকৃত কর্পোরেট গর্ভন্যান্স গাইডলাইন অনুস্বরণ না করে পরিচালিত হচ্ছে তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।
একটি তালিকাভূক্ত কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার (সিইও) কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) পদে থাকা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। কারণ, ২০১২ সালের ৭ই আগস্ট তৎকালীণ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (এসইসি) কতৃক প্রণীত কর্পোরেট গভর্নেন্স গাইডলাইন যা, ৩০ আগস্ট ২০১২ গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়েছে, যেখানে ২ নম্বর সেকশনের ২.১ সাব সেকশনে প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও), কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) এবং হেড অফ ইন্টারনাল অডিট নিয়োগ দেয়ার বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ আছে যে, প্রতিষ্ঠান পরিচালনার ক্ষেত্রে উল্লেখিত তিন জন কর্মকর্তা পৃথক ব্যক্তি হবেন এবং এক ব্যক্তি একই সঙ্গে একাধিক পদে থাকতে পারবেন না।
চলতি বছরের ৩ জুন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কতৃক সংশোধিত “কর্পোরেট গভর্নেন্স কোড ২০১৮”  যা, ১০ জুন, ২০১৮ গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়। সংশোধিত গাইডলাইনের ৩ নং সেকশনের সাব সেকশন ১ (বি) তে নিয়োগ বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে বলা আছে যে, একটি তালিকাভূক্ত কোম্পানিতে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও), কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস), প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) এবং হেড অফ ইন্টারনাল অডিট (এইচআইএসি) এই চার জন কর্মকর্তা পৃথক ব্যক্তি হবেন।
আবার সেকশন ৩ এর সাব সেকশন-২ এ বলা আছে যে, মিটিংয়ে উপস্থিতির ক্ষেত্রেও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও), প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) এবং হেড অফ ইন্টারনাল অডিট (এইচআইএসি) এই চার জনের উপস্থিত হওয়া বাধ্যতামূলক।
বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স এর মত আরো অনেক তালিকাভূক্ত কোম্পানি আমাদের শেয়ার মাকের্টে আছে, যারা একজন ব্যক্তিকে দিয়ে প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) এবং কোম্পানি সেক্রেটারি (সিএস) ২ জনের কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন।
অনেকেই মনে করেন, কোম্পানিগুলো নিজের স্বার্থের কারণে দক্ষ ও পেশাদার লোক নিয়োগ না দিয়ে কাগজে-কলমে একজনই একাধিক পদের দায়িত্ব পালন করছেন। এতে করে কোম্পানির কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করা যেমন সম্ভবন হয় না, তেমনি প্রতিষ্ঠানের জবাবদিহিতাও থেকে যায় প্রশ্নবিদ্ধ।
কর্পোরেট গভর্নেন্স কোড এর ৩ নং সেকশনের সাব সেকশন ১ (সি) এ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার (সিইও) নিয়োগ, কর্মপরিধি এবং দায়-দায়িত্ব সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে বলা থাকা সত্বেও প্রায়ই খবরের কাগজে দেখা যায় অনেক তালিকাভূক্ত কোম্পানি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এর কর্পোরেট গর্ভন্যান্স গাইডলাইন মানছে না। তারা আইন ও বিধি-বিধানের তোয়াক্কা না করে নিজেদের পরিচালনা পর্ষদের প্রণীত বিধি-বিধানের আলোকে প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় আগ্রহী।
ফলে প্রায়ই দেখা যায় নাম সর্বস্ব কোম্পানিগুলো কোম্পানির শেয়ারহোল্ডারদেরকে বছরের পর বছর কোন লভ্যাংশ না দিয়েও নামমাত্র বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) করে প্রতি বছর বড় অংকের লোকসান শেয়ারহোল্ডারদের দিয়ে অনুমোদন করিয়ে নিচ্ছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এর কেউ-ই ‘কর্পোরেট সংবাদ’ এর সাথে কথা বলতে রাজি হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইন্সটিটিউট অব সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি) এর প্রেসিডেন্ট এবং সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড এর কোম্পানি সেক্রেটারি মোহাম্মদ সানাউল্লাহ এফসিএস বলেন, কোন আইনানুগ প্রতিষ্ঠান এমন কাজ করতে পারে না। কারণ, আইনে একজন ব্যক্তির এমন একাধিক দায়িত্ব পালন করার সুযোগ নেই। 

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) যোগাযোগ করা হলে কর্পোরেট সংবাদকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মকর্তা জানান বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখবেন।

ভুক্তভোগীরা মনে করছেন, বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এর এমন অনৈতিক কাজ মোটেই কাম্য নয়। বিষয়টিকে তাঁরা বিএসইসি-কে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছে। তাদের মতে, উল্লেখিত কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে অন্যান্য কোম্পানিগুলো নিজেদের স্বার্থে অনিয়ম করার প্রবণতা বৃদ্ধি পাবে। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের মাঝে।

আরও পড়ুন, The Corporate Governance Code এর উপর ABC Learning N Consultancy LTD এর কর্মশালা অনুষ্ঠিত

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.